মনিরা কি চলে যাবে? একটু দাঁড়ান!

- নাজমুল আহসান

মনিরাকে একটু সাহায্য করবেন প্লিজ?

মনিরাসপ্তম শ্রেণির চঞ্চলমতী ছাত্রী মনিরা, বন্ধুদের সাথে খেলতে গিয়ে পড়ে গিয়ে হাঁটুতে সামান্য ব্যথা পায়। সে ব্যথা ক্রমশ বেড়ে গিয়ে পা ফুলে যায়। ডাক্তারের পরামর্শে ওর পরিবার জানতে পারলো ক্যান্সার বাসা বেধেঁছে ওর পায়ে।
একের পর এক কেমোথেরাপীর খরচ মেটাতে গিয়ে সর্বস্বান্ত হল ওর পরিবার। তবুও পা বাঁচানো যায়নি। ওকেও বাঁচানো যাবেনা। দেশের বাইরে গিয়ে চেষ্টা করতে পরামর্শ দিলেন ডাক্তার। সন্তানের এরকম ক্রমশ নিস্তেজ হয়ে যাওয়া সহ্য করতে না পেরে ধারদেনা করে ওর বাবা মা ওকে নিয়ে গেলেন ইন্ডিয়াতে। ভর্তি করে দিলেন চেন্নাইয়ের ভেলোরে ক্রিশ্চিয়ান মেডিক্যাল কলেজে। সেখানকার ডাক্তার জানালো ভুল চিকিৎসা হয়েছে এতদিন। মাশুল দিতে হবে মনিরাকে। বাঁচানো যাবেনা ওকে। বাঁচাতে হলে আবারো ছয়টি কেমোথেরাপী দিতে হবে ওকে। পুরো পৃথিবীটা ভেঙে পরল ওর বাবা মার মাথায়। অনেক টাকার ব্যাপার। এতদিন যা খরচ হয়েছে তার চাইতেও কয়েকগুন বেশী।

সর্বস্বান্ত এ পরিবার সন্ত্বানকে হারানোর আশংকায় ভেলোরের রাস্তায় দাঁড়িয়ে বিলাপ করছিল সেদিন। আমার এক বন্ধু তার পরিবারের এক সদস্যের চিকিৎসার জন্যে ভেলোরে অবস্থান করছিল তখন। মনিরাদের পরিবারের এই করুন কাহিনী গতকাল সন্ধ্যায় আমাকে ফোন করে জানাল। সাহায্য চাইল। বলল মাত্র সামান্য আট/দশ লাখ টাকার জন্যে মনিরার মত একটি ফুল অকালে ঝরে যাবে আমাদের সবার চোখের সামনে?

মনিরা

আমরা কি মনিরার পরিবারের পাশে এসে দাঁড়াতে পারিনা? পারিনা মনিরার স্কুলের বর্ণিল জীবনটাকে আরেকটিবার ফিরিয়ে দিতে? আমাদের সামান্য কিছু দান, যাকাত ফিতরা কিংবা আসন্ন কুরবাণীর ঈদের পশুর চামড়ার টাকা হয়ত মুমূর্ষু মনিরাকে এযাত্রায় বাঁচিয়ে তুলতে পারে। আর কিছু না পারি অন্তত পরম করুনাময় সৃষ্টিকর্তার কাছে দোয়া তো চাইতে পারি ওর জন্য।
মনিরা

মনিরা

ওকে সাহায্য পাঠাবার ঠিকানা
মো: মনিরুল ইসলাম
হিসাব নং – ৪৭১৩
ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি.
কুমারখালী শাখা, কুষ্টিয়া।

মূল লেখাঃ রাজকবি, সামু ব্লগ

লেখাটি বন্ধুদের মধ্যে শেয়ার করে দিন। হয়তো কেউ সাহায্য করবেন। মনিরা আবার হাসবে।

(মোট পড়েছেন 441 জন, আজ 1 জন)
শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন